Monthly Archives: March 2020

দুষ্টু বুড়ি


জানিস না কি, দুষ্টু বুড়ি

বয়েসটা তোর একশ কুড়ি?

তাই বলে কি মধ্য রাতে

স্বপ্ন আমার করবি চুরি?

দুষ্টু, দুষ্টু, দুষ্টু বুড়ি

যখন তখন স্বপ্ন চুরি

করলে আমি কেমন করে

মেঘ মুলুকে বেড়াই উড়ি?

দুষ্টু বুড়ি, দুষ্টু বুড়ি

বয়েসটা তোর একশ কুড়ি

তাই বলে কি যা খুশি তোর

ইচ্ছে হলেই করবি চুরি?

নিরো

ভাসতে ভাসতে মেঘটা হঠাৎ থমকে

আমায় দিল চমকে —

বলল সে তুই করবি কী আর বল?

আমার সাথে তার চে’ বরং নীল আকাশেই চল ।

পুড়িয়েছে তোর কপালখানা সে,

আঠারশ ঊনত্রিশে,

বাজিয়ে দোতারা পুড়িয়েছিল

যেমন নিরো রোমকে।

তাই তো বলি মেঘ হয়ে তুই

নীল আকাশেই চল —

সেখান থেকে বৃষ্টি সেজে

ফেলিস চোখের জল।

ওরা

ওরে ব্রহ্মাণ্ড

এ কী তোর কাণ্ড

জানালা একটা নেই

খাড়া তোর দেয়ালে!

ওপারেতে আছে যারা

হাসে না কী কাঁদে তারা

কিছুই দেখালি না রে

খ্যাপা তোর খেয়ালে।

মিনতি


করোনা গো করোনা!
এক কাজ কর না!
আমাদের ছেড়ে নিজে
মর না গো মর না!

মোক্তার


মেচেদায় মধুকর মোক্তার
মাঝরাতে জেগে ওঠে শোক তার
কাঁদে ঘড়া ঘড়া ভরে
গলা ছেড়ে দোরে দোরে
মেচেদাতে মধুকর মোক্তার।

রোজ তুমি

নরম নরম মেঘগুলো --
    আকাশটা রোজ ভোরে
    আধ জাগা আধ ঘুমের ঘোরে
    গোলাপি এক হালকা নেশায়
    সত্যি ভরা অলীক মেশায়
    তারপরে যায় পালিয়ে
    মিথ্যে আমায় জ্বালিয়ে
তোমার মতো কোন চুলো --

নিশ্চিন্তিপুর


বুদ্ধিতে ভরা মগজ
ভয়ানক তার ওজন না বয়ে —
হাবা হয়ে বাঁচা সহজ।