Category Archives: Bengali Compositions

শীতু-ভিতু


শীতু, শীতু, শীতু রে
ভিতু, আমি ভিতু রে
দিবারাত ভয়ে তোর
ভারি কম্পিতু রে।

ক্যালেন্ডার


অনন্ত পাল
ভয়ে ভয়ে কানে কানে
বলে চলে — কে বা জানে
কী যে হবে হায় হায়
কালই যদি হয়ে যায়
শেষ চিরকাল!

বোলতা রে


বোলতা রে বোলতা!
কেন তুই কাল ভোরে
ছিনু যবে ঘুম ঘোরে
উড়ে এসে জুড়ে মোরে
বল বল বল ওরে
বানালি রে ঢোল তা?

ভগবান


কত সাধ ছিল আহা মনে
ভুলিয়ে ভালিয়ে নির্জনে
একা ধরে নিয়ে গিয়ে
কাতুকুতু দিয়ে দিয়ে
হাসাই তোমারে প্রাণপণে।

ব্যাকুল এ অনুরোধে হায়
প্রভু তুমি দিলে না গো সায়
বদলে আমারে ধরে
হাতিবাগানের মোড়ে
শূলে তুলে কাটলে কোথায় !

ভয়ে


কোলাঘাটে কালিপদ কোলে
নানান ভয়েতে সদা দোলে
ভূতের ভয়েতে রাতে
মানুষের ভয়ে প্রাতে
কেঁপে দোলে কালিপদ কোলে।

হাওয়া-পাওয়া


বুক ভাঙা শ্বাস ছেড়ে টাকিতে
পাঁচু দাস ক’ন — হায় বাকি-তে
বেচে এরা শুধু হাওয়া
এছাড়া যায় না পাওয়া
বাকি-তে কিস্যু কেন টাকিতে?

হিলারি হান


হিলারি হান ! হিলারি হান !
জুড়িয়ে কান, ভরিয়ে প্রাণ
শুনিয়ো তোমার বেহালাখান
ভেসে যাক ধরা ডাকুক বান
বাজিয়ো তবুও বেহালাখান
বাজিয়ো কেবল, বাজিয়ো কেবল, বাজিয়ো কেবল
বেহালাখান।
হিলারি হান ! হিলারি হান !

মিঠে মালদা

mithey malda

ছবি উৎস – উইকিপিডিয়া

 মালদহে কানসাট
 মিষ্টির গানশাট
 এছাড়াও আছে সেথা
 সুধাময় আমসাট। 

দুখি ডিম


ডিম নিয়ে ভেবে দেখ একবার
নেই কেন এক জোড়া ঠ্যাং তার?
এদিকে মুরগি আসে ডিম থেকে
দিব্যি দু পায়ে হাঁটে এঁকেবেঁকে
আরো চিন্তের কথা কত রে
ছিল ডিম মুরগিরই ভিতরে
হায় তবে ঠ্যাং হারা কেন ডিম?
যতই ভাব না খাবে হিমশিম।

কেলোর কীর্তি


কেলোরাম পোদ্দার রেঁধে পদ্য
হাঁড়িতে জমাট করে রেখে অদ্য
রাত্রে তাড়িতে গুলে
খেল সব হাঁড়ি খুলে
কেলোরাম খুশি মনে রেঁধে পদ্য।