Tag Archives: ভীড়

চেন্নাই গমন, ভ্রমণ ও প্রত্যাবর্তন

(পরিমার্জিত ২৩/০৫/২০১৯)

গমন
Idli Dosa


    অর্থনীতি জাগায় ভীতি
    অঙ্ক ভরা পঙ্ক
    ভূগোল শেখায় যাসনে জাপান
    সেথায় ভূমিকম্প।
    দুচ্ছাই, দুচ্ছাই!
    ধরল মনে ঘেন্নাই
    যা ছিল সব বাক্সে ভরে
    ট্রেনখানাতে চেপ্টে চড়ে
    চললেম আমি চেন্নাই।
    দেখবি সেথা তিলক কেটে
    ঘুরব কেমন লুঙ্গি এঁটে
    বলব না আর একটি বারও
    এই জীবনে সুখ নাই।
    তামিল ভাষায় জমবে পেয়ার
    করব না আর কাউরে কেয়ার
    ইড্‌লি খাব, গিলব দোসা
    ঘুচবে মনের সকল গোসা
    রসম দিয়ে ভাতম খাব
    ফিরব না মন -- ট্রেন নাই।

 

ভ্রমণ

Travels 4

© ছবি - অমল সান্যাল

চিঁড়ে চ্যাপটা ভীড়ে ভ্যাপ্টা রেলগাড়ি করে কাকিনাড়া, চাগাল্লু হয়ে, এলুরু ছাড়িয়ে পৌঁছে গেলাম বিজয়ওয়াড়া। কোলাকালুরু থেকে চিরালাতে এসে ভাবি ভয়ে কারা থাকে ওরে আম্মানাব্রোলু, বিত্রাগুণ্টা উলাভাপাল্লা, নেল্লোরে? একে একে কত পার হয়ে যায় মানুবোলু যায়, যায় গুডুর আরামবাকম, গুমুডিপুণ্ডি কলকাতা ছেড়ে কোন সুদূর। আরও কত ছিল এন্নোর, ছিল পোন্নেরি, পনোপক্কম ইস্টিশানেতে ডাক ছেড়ে বেচে কাগজের গ্লাসে কাফি গরম। এরই মাঝে ঘুমে এসেছিল জুড়ে কখন চক্ষু মনে তো নাই জেগে উঠে দেখি পাশে বসে কহে চেন্নাই -- এস মোরে চেনাই।   প্রত্যাবর্তন
ফিরে যাই

© ছবি - অমল সান্যাল

চেন্নাই, চেন্নাই পথে বিপথে হেথা হোথা ঘুরি ফিরি কী মনোরথে! ভেবেছিনু তামিলে লিখে প্রেমলিপি যারে পাই তারে দেব খাওয়াব জিলিপি। কেবল এ কাজ এত কঠিন যে হবে বুঝায়নি মোরে কেহ নিদারুণ এ ভবে। তদুপরি জিলিপি হেথা নাহি গেল পাওয়া গেল যাহা পাওয়া তাহা সহজ না খাওয়া। ক্ষুধার জ্বালারে কেহ চাপিতে কি পারে? সরাইখানাতে তাই ঢুকি চুপিসারে। পাপপুণ্যির ফল পেনু সেইখানে জানিলাম জীবনের নাহি কোনও মানে। রসমেতে বড় টক সম্বরে ঝাল ইড্‌লি জাগায় রোষ দোসা গালাগাল। চেন্নাই, চেন্নাই, দিলি না আমারে ঠাঁই ফিরি আমি দুখ ভরে পুরনো সে চত্বরে ডালে ঝোলে অম্বলে খাবি খেতে তাই।